স্থাপত্য শিল্পে বিস্ময় চন্ডীগড় !

আজ কথা হবে উত্তরাঞ্চলীয় ভারতের দুই রাজ্য – পাঞ্জাব ও হরিয়ানার রাজধানী হিসেবে পরিচিত চন্ডীগড় সর্ম্পকে । দুটি রাজ্যের সঙ্গে সর্ম্পকযুক্ত হলেও চন্ডীগড় কিন্তু তাদের সাথে সংযুক্ত নয়। এটি একটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল এবং সরাসরি ভারত সরকারের প্রশাসনের অধীন।

চন্ডীগড় বিখ্যাত দেবী শ্রী চন্ডিকার মন্দিরের জন্য। এটির সৌন্দর্য এতটাই যে এখনো দুরদুরান্ত থেকে এই শহরে আসে মানুষ। তবে এটি ছাড়াও এই শহরে আসার আরো অনেকগুলো কারণ রয়েছে। যেমন চন্ডীগড় শহরটিকে ভারতের সবথেকে পরিস্কার ও সুখী শহর বলে গন্য করা হয়। এখানকার পরিবেশ হালকা এবং পর্যটন উপযোগী। ফলে শুধু চন্ডীগড় দিয়েই ভারত পর্যটনে যথেষ্ট এগিয়ে।এই শহরটি ফরাসি স্থপতি ল্যে কোর্বূসায়ের দ্বারা পরিকল্পিত। প্রতি বছর সারা দেশ থেকে পর্যটকেরা এই সু-পরিকল্পিত শহরের পরিদর্শনে আসে। তবে চন্ডীগড় সফরের জন্য সেরা সময় হল আগস্টের মাঝামাঝি থেকে নভেম্বর – শরৎকালের সময়, এই সময় এখানে মনোরম জলবায়ু অনুভূত হয়।

চন্ডীগড়ের স্থাপত্যশিল্প বেশ শক্তিশালী। এখানকার বিষ্ময়কর স্থাপত্য দেখতে সারা বিশ্ব থেকে জনসমাগম হয় ।এখানে বেশ ভালো সংখ্যায় প্রধান প্রধান পর্যটন স্থল রয়েছে। শহরটির পর্যটন খুবই সতেজ ও সমৃদ্ধশালী ছুটি উপভোগ করতে আপনাকে প্রদর্শিত করতে পারে। এই শহরে দেখার মত উল্লেখযোগ্য হলো : গর্ভনমেন্ট মিউজিয়াম আ্যন্ড আর্ট গ্যালারী, ফান সিটি ,গার্ডেন অফ ফ্র্যাগরেন্স, ইন্ট্যারন্যাশনাল ডলস্ মিউজিয়াম, বাটারফ্ল্যাই পার্ক, রক্ গার্ডেন, ওপেন হ্যান্ড মনুমেন্ট সহ আরো অনেক কিছু্।